প্রসঙ্গ: রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে জিহাদের ডাক ও আমাদের করণীয়

 প্রসঙ্গ: রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে জিহাদের ডাক ও আমাদের করণীয়

الحمد لله والصلاة والسلام على رسول الله وعلى آله وصحبه ومن والاه أما بعد:

ফিতনা, ফ্যাসাদ, মিথ্যাচার এবং ইলম ও ‘আলীম শূন্যতার আজকের এই দুঃসময়ে কিছু “আল্লামা”, “শাইখুল হাদীস” ও “মুফতী”গণ তরুণ প্রাণদের অর্থহীন শূন্যতার দিকে ডাক দিচ্ছেন হ্যামেলিনের বংশীবাদকের মত।

এভাবেই মায়ানমারের অনেক মুসলমান অসহায়ের মত সাগরের ভেসে বেড়াচ্ছে।

স্বাধীনতার পরের সময়টায়, ঠিক একইভাবে আরেকটা ভিন্ন “ব্র্যান্ডের” হ্যামেলিনের বংশীবাদকেরা তরুণ প্রাণদের ডেকেছিলেন “বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্রের” দিকে – আর তরুণ প্রাণেরা দলে দলে নিজেদের লেখাপড়া, বাড়িঘর ছেড়ে ছুটে গিয়েছিল এক “অজানা অর্থ হীনতা”র বেদীতে বলি হতে। আজো ঐ সব বংশীবাদকদের অনেকেই দিব্যি শান-শওকতে বেঁচে আছেন – দামী গাড়ী চড়ছেন, পাঁচ তারা হোটেলের অন্ধকার কোনে বসে মদ গিলছেন, কেউ বা গৃহপালিত বিরোধী দল হয়ে অতীতে মন্ত্রিত্ব উপভোগ করেছেন, কেউ বা তাদেরই সাথে আজ আনন্দে মেতে আছেন – যাদের বিরুদ্ধে বিপ্লবের ডাক দিয়ে তরুণ প্রাণগুলোকে তারা মৃত্যুর দরজায় ঠেলে দিয়েছিলেন। অথচ, তখন তাদের কথাগুলো কি ভয়ঙ্কর রকমের সুন্দর ও সত্য লেগেছিল তরুণদের কানে – যে জন্য বংশীবাদকদের ঐ মরণ সুর বেজে উঠতেই তারা মোহাবিষ্ট হয়ে দলে দলে গণবাহিনীতে যোগ দিয়েছিলেন, পৃথিবীর বুক থেকে চিরতরে হারিয়ে যেতে!

আজ রোহিঙ্গা সংকটকে কেন্দ্র করে নতুন বংশীবাদকেরা নাকি তরুণ প্রাণদের জিহাদের ডাক দিচ্ছেন – এমন তরুণ প্রাণদের যারা হয়তো ভালো/শুদ্ধ করে সূরা ফাতিহাও পড়তে জানেন না – জ্বিহাদের জটিল ফিকাহ তো বহু দূরের কথা!! এই তো সেদিন এসব আল্লামাদের পূর্বসূরিরা “জর্দার কৌটা বোমা” দিয়ে জ্বিহাদ করে দেশকে জঙ্গি রাষ্ট্র প্রতীয়মান করার কাজে কাফিরদের সহায়তা করে গেলেন – তাতে ইসলামের বা মুসলিমদের কি লাভ হয়েছে তারাই জানেন। আমি কেবল বুঝি যে, আজ নাগরিক ঢাকার টেলিভিশন দেখা ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের কেজির একটা বাচ্চা হয়তো লম্বা দাড়ি কোন তরুণকে দেখে ভয়ে মায়ের আঁচলে মুখ লুকায়! আজকের আল্লামারা যা করতে চাইছেন, তাতে হয়তো দু’দিন পরে দাড়ি রাখতে লাইসেন্স লাগবে। এর মূলে একটাই কারণ দ্বীনের ইলম ও ‘আলীমের অভাব।

আসুন তাহলে এই ব্যাপারে একটু জেনে নিই এমন একজন ‘আলীমের কাছ থেকে যিনি মদীনাহ্ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফিকহের উপর পি.এইচ.ডি করেছেন। যারা কিতাবি শিক্ষার মর্ম বোঝেন ও খোঁজেন, তাদের অবগতির জন্য: বিলাল ফিলপ্স, ইয়াসির কাথি, মোহাম্মাদ আল শরীফ, ইউসুফ এস্টেস, তৌফিক চৌধুরী এদের কেউই কিন্তু দ্বীন শিক্ষায় আমাদের এই ‘আলীমের সমকক্ষ নন। আমরা: এই মুহূর্তে আমাদের করণীয় কি – আসুন তাহলে তা জেনে নিই ড. মুহাম্মদ সাইফুল্লাহর কাছ থেকে

 ভিডিও লেকচারটি শুনুন এখান থেকে:

[youtube=http://www.youtube.com/watch?v=kxk2OOJ_zAg&feature=youtube_gdata_player]

কৃতজ্ঞাতা স্বীকার: আহসানুল করীম

This Post Has 13 Comments

  1. of course

  2. I Dont Know How can This jahil Obtain PHD in FIqh!! Ajib He doesnt know any thing about Islam his Aqeda is Dodgy How can this “Abul” say to obey the law of the Taghuut Gov!! may Allah Guide them or Destroy ameeen & Allah says “If u hav 20 u can win over 200! he dont even kno Al Quran lol

  3. hmm Right Kufr bit Akhi, m feeling He is weak in Fiqh too only learn Knowledge no Noor of Iman in Hearth but im smelling Wahn & Nifaq from his words, How dare he says Jihad in Iraq & Khurasan is Fitna & Muslims Killing Muslims! it proves how weak he is in Aqida.. Audubillah May Allah save us from his fitna his Fitna is greater then Dajjals Fitna As Muhammad Saw Said

    1. Allah save us from this wicked “Scholars” Woe to him Who defends Democratic gov n Kuffar & Mock- Criticize fellow muslims… Evil Man totally .. oooh Allah lord of the Seven heavens save ys from their Fetna and Destroy them if they dont have the luck of getting hedayah ameeeen theunjustmedia.com

  4. @Admin – Dr. Saifullah ke ki kharap bujhaite chailen naki bujlam na? manushder comment to oitai bujhate chacche mone hoi….Jahil ta ke???

  5. Kochur Scholar , kochur Alem , Chehara deke buja jay kali khay r gumay r vuri baray

  6. আসসালামুওালাইকুম,
    আপনারা যারা ইমোশোনাল হয়ে কমেন্টস করসেন এতে বুঝা যাই আপনারা ইসলাম কে ভাল বাসেন আলহামদুলিল্লাহ কিন্তু রাসুল (সাঃ) কি মক্কার জীবনে কোন জিহাদ করেছেন? হইত মনে করবেন এই প্রশ্ন কেন? একটা জিনিস তুলনা করে দেখেন রাসুল (সাঃ) এর সময় মক্কার জাহেল দের যে আকীদাহ ছিল তা আমাদের বর্তমান বাংলাদেশি মুসলিমদের চেয়ে ভালো। আপনারা যদি নিজের ঘরের লোকদের ঠিক না করে অন্যদের জন্য কাজ করেন তাহলে আপনার বাংলাদেশি ভাই দের কি হবে? এদেরকে কে তাওহীদ এর দাওয়াত দিবে? বাংলাদেশে প্রায় ৩,৫০,০০০ পীর মানুষকে জাহান্নামে নেয়ার ব্যাবসা খুলে রেখেছে তাদের বিরুদ্ধে তো কখনো কেউ দাওয়াত দেয় না। জিহাদ ইসলামের একটি গুরুত্ব পূর্ণ বিষয় যে এটাকে অবিশ্বাস করবে কে ইসলাম থেকে বের হয়ে যাবে কিন্তু তার আগে বাংলাদেশের মানুশকে আগে তাওহীদের শিক্ষা দিতে হবে। আপনারা বাংলাদেশের ১০০ জন সাধারণ লোকের মধ্যে জরিপ করেন দেখবেন তাদের ৯৫ জন ইসলাম কি? ঈমান কি? ইহসান কি? ইসলামের রুকন কয়টা? ঈমানের রুকুন কয়টা? আল্লাহ কথায়? আর উত্তর দিতে পারবেনা এদের নিয়ে কি ভাবে জিহাদ করা সম্ভব? আই দেশে ফাজর এর সালাতে কয় জন লক আসে ১০/২০ জন এক এক মাসজিদে। এই মুসলিমদের নিয়ে জিহাদ সম্ভব না। আর আল্লাহর এই বাণী অবশ্যই সত্য “If u have 20 u can win over 200!” কিন্তু আল্লাহ এই খানে নামধারি মুসলিমদের কথা বলেন নি বলেছেন আসল মুমিন্দের কথা যারা ছিলেন রাসুল (সাঃ) এর সাহাবা। যেদিন বাংলার মানুষ রা ঐ রাকমের ইমানের কাছে জেতে পারবে বা অন্ততো আকীদাহ পরিষ্কার করে শুধু মাত্র আল্লাহর ইবাদাত করবে শেদিন জিহাদে ডাক দিলে কেউ চুপ করে বশে থাকবে না। শুধু ইমোশোনাল হয়ে কথা বললে কিছু হবে না দেখেন নি জে এম বি(JMB) দীনের বিষয়ে মূর্খ দের নিয়ে জিহাদ করতে গিয়ে বাংলাদেশে ইসলামের দাওয়াত কে কি ভাবে বন্ধ করে দিয়েছিল।
    তাদের ভুলের জন্য বাংলাদেশের সব দাওাহ সংস্থা গুলো কে বন্ধ করে দেয়া হল। পুর দেশে ৫০০ অধিক মাসজিদে তালা মারা হলো। এই গুলো কিন্তু বাতিল দের মাসজিদ না যারা সঠিক ইসলামের দাওয়াত দেয় তাদের মাসজিদ এই জন্যই বিদাতি দের এখন এত জোর। আল্লাহ আমাদের বুঝার তৌফিক দান করুন।

    যেদিন বাংলাদেশের মানুষকে তাওহীদ এর শিক্ষা দিয়ে তাদের তার উপর আমল করানো যাবে সেই দিন জিহাদের ডাক দিয়ে দেখবেন প্রতিটা ঘর থেকে একজন ওমার, আবু বাকর, উথমান, আলি, খালিদ বের হবে এবং ঐ জিহাদে আল্লাহর সাহায্য ও থাকবে। দীন এর বিষয়ে মূর্খ দের নিয়ে জিহাদে গেলে তাতে ইসলামের ক্ষতি আর আল্লাহর অসন্তুষ্টি ছাড়া কিছুই পাওয়া যাবে না।

    আল্লাহু আলাম

    জাযাকুমুল্লাহ খাইর


  7. Al Kufr Bit Taghut, Shaykhul Islam Ibn Taymiyah এবং Fariah Ahmed এখানে যদিও তিনটি নাম কিন্তু সবগুলো এক জায়গা থেকে বা এক কম্পিউটার থেকে লেখা। আমি এই সম্মানিত ভিজিটর সহ যারাএ বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তাদেরকে বলব, ইসলামের প্রতি আপনাদের আবেগকে আমি শ্রদ্ধা করি। কারণ, মুসলমান ভাইদের কষ্টে কষ্ট পাওয়া ঈমানের পরিচায়ক। কিন্তু এই আবেগকে অবশ্যই প্লান মাফিক সঠিকভাবে ব্যবহার করতে হবে। অন্যথায় অপরিণাম দর্শী কাজের জন্য ভয়ানক ক্ষতি হয়ে যাবে।
    একটি কাফের রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে একজন মুফতী বা আলেম গুটিকয়েক যুবককে নিয়ে জিহাদের ঘোষণা দেয়া কতটুকু গ্রহণযোগ্য? অন্যদিকে আমাদের ধ্বজাধারী সরকার যেখানে মজলুমের প্রতি সামান্য করুণা প্রদর্শন করে নি। এমন পরিস্থিতি আমাদের মাথা গরম করে সিদ্ধান্ত নিলে লাভের তুলনায় ক্ষতির পরিমাণ বেশী হবে।
    এভাবে যে কেউ জিহাদের ডাক দিলে জিহাদ নামক ইসলামের সবোর্চ্চ চুড়া কলঙ্কিত হবে। ক্রমান্বয়ে জিহাদ মানুষের নিকট অগ্রহণযোগ্য হয়ে পড়তে পারে। দাওয়াহর পথ বন্ধ হয়ে যেতে পারে। যেমনটি ইতোপূর্বে জিএমবি বা হারকাতুল জিহাদ…ইত্যাদি সংগঠনের কার্যক্রম থেকে আমরা হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছি। নেতৃত্ব ও প্রস্তুতি সব কিছু যেখানে অনুপস্থিত সেখানে হঠাৎ সিদ্ধান্ত কখনোই কাম্য নয়। আজ প্রয়োজন মুসলামানদের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে ভাবা।
    অন্য দিকে যেখানে মুসলিমদের ঈমান-আকীদা ও আমলের দুর্দিন চলছে সেখানে প্রয়োজন এ দিকগুলোর উন্নয়ন।
    ডা: সাইফুল্লাহকে হেয় প্রতিপন্ন করে আপনাদের কারো কারো বক্তব্য মোটেও সমর্থন যোগ্য নয়। আশা করি আর সহনশীল হবেন। কারও কথা মনপূতো না হলে মার্জিত ভাষায় যৌক্তিকভাবে প্রতিবাদ করবেন।
    আল্লাহ তায়ালা মুসলমানদেরকে হেফাজত করুন এবং দ্বীনের উপর অবিচল রাখুন। আমীন।

  8. Hijbut hahiri aqida….

  9. মহিলাদের ওয়াজ , বই টি কেমন? লেখক বিবি আমেনা .

  10. ভাবতে অবাক লাগে ২ দিন আগেও যেই সব পোলাপান, মেসেজ দিয়ে বিতর নামাজের সাহীহ পদ্ধতি, নামাজে সাহূ সিজদার মাসালা জিঙ্গেস করত ! তারা আজকে জিহাদের মাসালা নিয়ে ফেসবুকে তর্ক করতে আসে !
    রাসূল (সাঃ) একটি সম্প্রদায়কে লক্ষ করে বলেছিলেন, হুদাসাউল আসলান ওয়া সুফাহালাউ আহলাম ! ( তারা অল্প বয়ষের হবে ও বোকা কিসিমের হবে)
    তাদের সাথে রাসূল (সাঃ) এর হাদীছটি হুবহূ মিলে যাচ্ছে !

  11. mr kufr bit mone hoy kobor pujari

  12. ভোগাস। হযরত খালিদ বিন ওয়ালিদ (রা) বিপরীতে বিধর্মীদের সৈন্য সংখ্যা কত ছিল?

Leave a Reply